1. admin@alokitobangla24.com : admin :
  2. zunaid.nomani@gmail.com : Zunaid Nomani : Zunaid Nomani
শুক্রবার, ০১ জুলাই ২০২২, ০২:২১ পূর্বাহ্ন

ত্রিপুরায় তৃণমূল কংগ্রেসের ভোট কৌশলী প্রশান্ত কিশোর || পুলিশি হেনস্হার অভিযোগ

আলোকিত বাংলা ২৪ ডেস্ক
  • আপডেট সময় : সোমবার, ২৬ জুলাই, ২০২১
  • ২৪৬ বার পঠিত

আলোকিত বাংলা ডেস্কঃ তৃণমূল কংগ্রেসের এবারের চোখ ত্রিপুরা রাজ্য। তৃণমূল কংগ্রেসের ভোটকুশলী প্রশান্ত কিশোর ও তার গ্রুপের ২৩ জন সদস্য ত্রিপুরায় সমিক্ষা চালাচেছন। ত্রিপুরায় এসে হেনস্তা’র শিকার ভোটকুশলী প্রশান্ত কিশোরের দল। তাঁর দলের ২৩ জন সদস্যকে রবিবার রাত ১টা থেকে আচমকা জিজ্ঞাসাবাদ শুরু করে পুলিশ, এমন অভিযোগ করেছেন প্রশান্ত কিশোর। এমনকী ২৬ জুলাই সোমবারও তাঁদের হোটেল থেকে বের হতে দেওয়া হয়নি। অভিযোগ, জিজ্ঞাসাবাদের নামে তাঁদের আটকে রাখা হয়েছে।
ত্রিপুরায় তৃণমূল কংগ্রেসের সংগঠন মজবুত করার চেষ্টা চালাচ্ছে ঘাসফুল শিবির। একুশে জুলাই মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের বার্তা শোনানো হয় ত্রিপুরায়। আর এই সংগঠন বৃদ্ধির দায়িত্ব বর্তেছে পিকের টিমের উপর। ত্রিপুরায় ঘাসফুল ফোটাতে ২০২৩ সাল পর্যন্ত পিকের সঙ্গে তৃণমূলের চুক্তি হয়েছে। তাই সেই রাজ্যের মানুষের মন বোঝার চেষ্টা করছে প্রশান্ত কিশোর তথা আই প্যাক টিমের সদস্যরা। সেই উদ্দেশে ত্রিপুরায় গিয়েছেন তাঁরা। আপাতত মঠচৌমুহনি সংলগ্ন পুরানো জেল রোড যাওয়ার রাস্তায় একটি হোটেলে রয়েছেন আই প্যাক সদস্যরা।
গত এক সপ্তাহ ধরে আগরতলা-সহ গোটা রাজ্যে তাঁরা তৃণমূলের হয়ে জনমত সমীক্ষা চালাচ্ছেন। অভিযোগ, তাঁদের পরিচয় জানতে রবিবার রাত একটা থেকে হোটেলে আটক করে রাকা হয়েছে। পরিচয় জানার নামে হয়রানি করা হচ্ছে বলে অভিযোগ উঠেছে। এ প্রসঙ্গে ত্রিপুরার তৃণমূলের রাজ্য সভাপতি আশিসলাল সিং জানান, “রুটিন জিজ্ঞাসাবাদের নামে পিকের টিমের সদস্যদের আটকে রাখা হয়েছে। ওঁরা শুধু তৃণমূল নয় সমস্ত দলের সঙ্গেই কথা বলছিল। আসলে বিজেপি সবকিছুর মধ্যে ভূত দেখছে।” তাঁর কথায়, “এটা গণতান্ত্রিক কাঠামোয় কুঠারাঘাত। একজন ত্রিপুরাবাসী হিসেবে আমি লজ্জিত।”
উল্লেখ্য, ২১ জুলাই কৈলাস নগরে জমায়েত করেছিলেন তৃণমূলের বর্ষীয়ান নেতা আশিসলাল সিনহাসংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: ত্রিপুরায় (Tripura) ‘হেনস্তা’র শিকার ভোটকুশলী প্রশান্ত কিশোরের দল। তাঁর দলের ২৩ জন সদস্যকে রবিবার রাত একটা থেকে আচমকা জিজ্ঞাসাবাদ শুরু করে পুলিশ। এমনকী, সোমবারও তাঁদের হোটেল থেকে বের হতে দেওয়া হয়নি। অভিযোগ, জিজ্ঞাসাবাদের নামে তাঁদের আটকে রাখা হয়েছে।
তৃণমূলের (TMC) এবারের পাখির চোখ ত্রিপুরা। সেখানে দলের সংগঠন মজবুত করার চেষ্টা চালাচ্ছে ঘাসফুল শিবির। একুশে জুলাই মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের বার্তা শোনানো হয় ত্রিপুরায়। আর এই সংগঠন বৃদ্ধির দায়িত্ব বর্তেছে পিকের টিমের উপর। ত্রিপুরায় ঘাসফুল ফোটাতে ২০২৩ সাল পর্যন্ত পিকের সঙ্গে তৃণমূলের চুক্তি হয়েছে। তাই সেই রাজ্যের মানুষের মন বোঝার চেষ্টা করছে প্রশান্ত কিশোর তথা আই প্যাক টিমের সদস্যরা। সেই উদ্দেশে ত্রিপুরায় গিয়েছেন তাঁরা। আপাতত মঠচৌমুহনি সংলগ্ন পুরানো জেল রোড যাওয়ার রাস্তায় একটি হোটেলে রয়েছেন আই প্যাক সদস্যরা।
গত এক সপ্তাহ ধরে আগরতলা-সহ গোটা রাজ্যে তাঁরা তৃণমূলের হয়ে জনমত সমীক্ষা চালাচ্ছেন। অভিযোগ, তাঁদের পরিচয় জানতে রবিবার রাত একটা থেকে হোটেলে আটক করে রাকা হয়েছে। পরিচয় জানার নামে হয়রানি করা হচ্ছে বলে অভিযোগ উঠেছে। এ প্রসঙ্গে ত্রিপুরার তৃণমূলের রাজ্য সভাপতি আশিসলাল সিং জানান, “রুটিন জিজ্ঞাসাবাদের নামে পিকের টিমের সদস্যদের আটকে রাখা হয়েছে। ওঁরা শুধু তৃণমূল নয় সমস্ত দলের সঙ্গেই কথা বলছিল। আসলে বিজেপি সবকিছুর মধ্যে ভূত দেখছে।” তাঁর কথায়, “এটা গণতান্ত্রিক কাঠামোয় কুঠারাঘাত। একজন ত্রিপুরাবাসী হিসেবে আমি লজ্জিত।”
উল্লেখ্য, ২১ জুলাই কৈলাস নগরে জমায়েত করেছিলেন তৃণমূলের বর্ষীয়ান নেতা আশিসলাল সিনহা-সহ অন্যান্য নেতারা। ওই দিন তৃণমূল সুপ্রিমোর বার্তা শোনানোর ব্যবস্থা করা হয়েছিল। সেই সময় বিজেপি কর্মীরা তাঁদের উপর হামলা চালায় বলে অভিযোগ। এমনকী, ৮২ জন তৃণমূল নেতা-কর্মীকে গ্রেপ্তার করে ত্রিপুরার পুলিশ। ফের তৃণমূলের ভোট টিমকে হেনস্তা করার অভিযোগ করলো ভোট কৌশলী দল।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এ জাতীয় আরও খবর

ফেসবুকে আমরা

© স্বত্ব সংরক্ষিত © ২০২১ আলোকিত বাংলা ২৪
Theme Customized BY Theme Park BD