1. admin@alokitobangla24.com : admin :
  2. zunaid.nomani@gmail.com : Zunaid Nomani : Zunaid Nomani
রবিবার, ২৮ নভেম্বর ২০২১, ০৮:৫১ পূর্বাহ্ন

৪ তরুণ-তরুণী দৃষ্টি ফিরে পেলেন পুনীতের দান করা চোখে

আলোকিত বাংলা ডেস্ক
  • আপডেট সময় : বুধবার, ৩ নভেম্বর, ২০২১
  • ৪৮ বার পঠিত

আলোকিত বাংলা ডেস্কঃ ভারতের কন্নড় ইন্ডাস্ট্রির তারকা পুনীত রাজকুমার শুক্রবার মারা গেছেন। সদ্য প্রয়াত এই অভিনেতা সবার কাছে ‘পাওয়ারস্টার’ নামে পরিচিত ছিলেন। অভিনয় দক্ষতা এবং মানবিক গুণাবলী দিয়ে পর্দার বাইরেও তিনি ছিলেন মানুষের জীবনের নায়ক, ছিলেন তাদের ভরসার আশ্রয়স্থল। মৃত্যুর পরও মনবতার নজির রেখে গেলেন পুনীত। তার দান করা চোখে দৃষ্টি ফিরে পেলেন ৪ তরুণ-তরুণী। অভিনেতার ইচ্ছে অনুসারে চিকিৎসকদের একটি দল তার মৃত্যুর পর ছয় ঘণ্টার মধ্যে প্রক্রিয়া সম্পাদন করেন। এবার টাইমস অব ইন্ডিয়ার খবর, সফল অস্ত্রোপচারের পর পুনীত রাজকুমারের দান করা দুই চোখে দৃষ্টিশক্তি ফিরে পেয়েছেন চারজন। তাঁদের মধ্যে তিনজন পুরুষ ও একজন নারী। আকস্মিক হৃদরোগে গত ২৯ অক্টোবর অনেককে কাঁদিয়ে না ফেরার দেশে পাড়ি জমান কন্নড় সুপারস্টার পুনীত রাজকুমার। মাত্র ৪৬ বছর বয়সে তাঁর মৃত্যুতে শোকস্তব্ধ বিনোদন অঙ্গন। সমাজসেবার জন্য তিনি লাখো মা।

মৃত্যুর আগে পুনীত তার দুই চোখ দান করে যান। পুনীত রাজকুমারের বাবা কিংবদন্তি অভিনেতা ডা. রাজকুমার ১৯৯৪ সালে প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলেন, তাঁর পুরো পরিবার মরণোত্তর চক্ষুদান করবে। পুনীতের দান করা চোখে চার তরুণ-তরুণী দৃষ্টিশক্তি ফিরে পেয়েছেন। গেল দুদিনে তিন পুরুষ ও একজন নারীকে ট্রান্সপ্ল্যান্ট সার্জারি করা হয়। বেঙ্গালুরুর নারায়ণ নেত্রালয় চক্ষু হাসপাতালে তাঁদের সার্জারি হয়। বিধি ও ব্যক্তিগত গোপনীয়তা রক্ষায় রোগীদের নাম প্রকাশ করেনি হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ। উন্নত প্রযুক্তির সাহায্যে এ সার্জারি হয় এবং তা করা হয় বিনামূল্যে। নারায়ণ নেত্রালয়ের চেয়ারম্যান ও ব্যবস্থাপনা পরিচালক ডা. ভুজং শেঠি জানিয়েছেন, কর্ণাটক রাজ্যে এই প্রযুক্তি প্রথম বার প্রয়োগ করা হয়েছে, যেখানে চারজনকে চক্ষুদান করা হয়েছে। ২৯ অক্টোবর জিমে শরীরচর্চা করার সময় হৃদরোগে আক্রান্ত হন পুনীত রাজকুমার। এরপর বেঙ্গালুরুর বিক্রম হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়।

৩১ অক্টোবর সকালে বেঙ্গালুরুর শ্রী কান্তিরাভা স্টেডিয়ামে রাষ্ট্রীয় মর্যাদায় শেষকৃত্য হয় দক্ষিণ ভারতীয় এ তারকার। প্রয়াত অভিনেতাকে শেষ শ্রদ্ধা জানাতে যান কর্ণাটকের মুখ্যমন্ত্রী বাসবরাজ বোম্মাইসহ অগণিত মানুষ। ভারতীয় বিভিন্ন গণমাধ্যম সূত্রে জানা গেছে, ২৬টি এতিমখানা, ১৬টি বৃদ্ধাশ্রম এবং ৪৫টি বিদ্যালয় পরিচালনা করতেন পুনীত। তাতে এক হাজার ৮০০ শিক্ষার্থী বিনাবেতনে অধ্যয়ন করত। পুনীতের মৃত্যুর পর সেই এক হাজার ৮০০ শিক্ষার্থীর দায়িত্ব নিয়েছেন তামিল অভিনেতা বিশাল কৃষ্ণ রেড্ডি। শিশু অভিনেতা হিসেবে ক্যারিয়ার শুরু করেছিলেন পুনীত রাজকুমার। ১২টি সিনেমায় শিশুশিল্পী হিসেবে কাজ করেছেন; পেয়েছেন ভারতের জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কারও। ২০০২ সালে ‘আপ্পু’ সিনেমায় অভিনয় করে কন্নড় সিনেমায় তুমুল জনপ্রিয়তা পান তিনি। প্রায় ২৯টি সিনেমায় অভিনয় করেছেন পুনীত রাজকুমার। ছিলেন কন্নড় চলচ্চিত্র জগতের সবচেয়ে পারিশ্রমিকপ্রাপ্ত অভিনেতা। তাঁর আকস্মিক মৃত্যুতে শোকস্তব্ধ বিনোদন অঙ্গন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরও খবর

ফেসবুকে আমরা

© স্বত্ব সংরক্ষিত © ২০২১ আলোকিত বাংলা ২৪
Theme Customized BY Theme Park BD